বাংলা উপন্যাসের বিভিন্ন বিষয়

বাংলা উপন্যাস

উপন্যাস বাংলা সাহিত্যে একটি বিশেষ জায়গা দখল করে আছে। উপন্যাস পড়তে আমরা সবাই ভালবাসি। উপন্যাস পাঠ করে আমরা মানব জীবনের বিভিন্ন হাসি-কান্না, সমস্যা, ভাললাগা-ভালবাসা সহ আরও নানা বিষয় সম্পর্কে জানতে পারি। উপন্যাস আমাদের মনে আনন্দের খোড়াক জোগায়। ব্যক্তির সাথে ব্যাক্তির সম্পর্কের মাধ্যমে সামাজিক সম্পর্কের সৃষ্টি হয়। এই সমস্ত সম্পর্কের মাধ্যমে সৃষ্ট ঘটনাবলি নিয়েই উপন্যাসের কাহিনী নির্মিত হয়। ব্যক্তির আচরণ, ভাবনা এবং ক্রিয়াকলাপই হয়ে উঠে উপন্যাসের প্রধান বর্ণনার বিষয়।

উপন্যাস হলো গদ্যে লিখিত হয়ে থাকে। এটি সাধারণত দির্ঘ আকৃতির হয়ে থাকে। উপন্যাস  বর্ণনাত্মক কথাসাহিত্য। ছোটগল্প, নাটক ও কবিতার মত উপন্যাসও সাহিত্যের একটি বিশেষ শাখা। এ শাখা তুলনামূলকভাবে সাহিত্যে নতুন একটি জায়গা দখল করে নেয়। আমরা জানি, যিনি উপন্যাস রচনা করেন তিনি ঔপন্যাসিক। ঔপন্যাসিক তাঁর নিজস্ব চিন্তাভাবনা, ধ্যান-ধারণা হতে উপন্যাস রচনা করে থাকেন।

সাহিত্যের বিভিন্ন শাখা-প্রশাখা আমরা লক্ষ্য করে থাকি। সাহিত্যের অন্যান্য শাখার মধ্যে উপন্যাস সর্বাধুনীক এবং সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় শাখা। অষ্টাদশ শতাব্দীতে (১৮শ) ইংল্যান্ডে প্রথম আধুনিক উপন্যাস রচিত হয়। উনবিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি বাংলা ভাষায় প্রথম উপন্যাস রচিত হয়। ড্যানিয়েল ডিফো ইংরেজি ভাষায় প্রথম উপন্যাস রচনা করেন। পক্ষান্তরে বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় বাংলা ভাষায় প্রথম সার্থক উপন্যাস রচয়িতা। যদিও বাংলা ভাষার প্রথম উপন্যাস হল ফুল মনি করুণার বিবরণ(১৮৫২)।

উপন্যাসের শ্রেণিবিভাগউপন্যাস নানা ধরণের হয়ে থাকে। উপন্যাসের কাহিনী, চরিত্র, মনস্তাত্ত্বিক বক্তব্য বিষয়ের উপর ভিত্তি করে এদের শ্রেনিবিভাজন করা হয়্। যথাঃ

১। সমাজিক উপন্যাস

২। ঐতিহাসিক উপন্যাস

৩। মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাস

৪। রাজনৈতিক উপন্যাস

৫। কাব্যধর্মী উপন্যাস

৬। গোয়েন্দা উপন্যাস

৭। পত্রোপন্যাস উপন্যাস

৮। হাস্যরসাত্মক উপন্যাস

৯। আত্মজৈবনিক উপন্যাস

১০। আঞ্চলিক উপন্যাস

১১। রহস্য উপন্যাস

১২। রুপক উপন্যাস

১৩। চেতনা প্রবাহ রীতির উপন্যাস

১৪। রোমান্সধর্মী উপন্যাস

১৫। পুরান কাহিনীমূলক উপন্যাস

১৬। বিরত্বব্যাঞ্জক উপন্যাস।

বিভিন্ন শ্রেণীর বাংলা উপন্যাস পড়তে/ ডাউনলোড করতে নিচের লিংকগুলো অনুসরন করুন।
০১। বাংলা উপন্যাস-১
০২। বাংলা উপন্যাস-২
০৩। বাংলা উপন্যাস-৩